কোন গির্জা?

কোন গির্জা?

এই মিশনটি কোনও এক অভিন্ন চার্চ বা সংস্থাকে প্রতিনিধিত্ব করে না বরং বিশ্বের ত্রাণকর্তা হিসেবে যীশুর ঘোষণার ক্ষেত্রে সকল বৃহত্তর খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের সাথে সবাইকে সম্মিলিত করে। যীশুকে বিশ্বাস করে এমন সকল সোসাইটির খ্রীষ্টানগণ আমার ভাই এবং বোন।

প্রকৃত চার্চ বা গির্জা আসলে কোনও দৃশ্যমান গির্জা নয় যা আপনি নিজের চোখ দিয়ে দেখতে পারেন।  প্রকৃত গির্জা হল অদৃশ্যমান এবং যারা যীশুকে তাদের রক্ষাকর্তা হিসেবে বিশ্বাস করে তাদের প্রত্যেকের অভ্যন্তরে বাস করে। এই গির্জায় বহু প্রোটেস্ট্যান্ট, ইভানজেলিকালস, এ্যংলিকানস, ক্যাথলিকস, অর্থোডক্স ইত্যাদি রয়েছেন এমনকি এমন কিছু সদস্য আছে যারা আদৌ কোনও খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের অন্তর্গত নয়। অদৃশ্য চার্চ হল পৃথিবীতে ঈশ্বরের রাজ্য এবং ঈশ্বরের পবিত্র আত্মা যারা এই চার্চের অংশ তাদের অন্তরে বসবাস করে, বাইবেল অনুসারে।

“যীশু তাদের বললেন, ‘ঈশ্বরের রাজ্য এমনভাবে আসে, যা চোখে দেখা যায় না; লোকেরা বলবে না য়ে, ‘এই য়ে এখানে ঈশ্বরের রাজ্য’ বা ‘ওই য়ে ওখানে ঈশ্বরের রাজ্য৷’ কারণ ঈশ্বরের রাজ্য তো তোমাদের মাঝেই আছে৷” (লুক ১৭:২০-২১)

ইহা যাহোক সকল খ্রীষ্টানদের জন্য একটি ভাল খ্রীষ্টীয় ধর্মসভা/ গির্জার অংশ হতে অত্যন্ত জোরালোভাবে সুপারিশ করা উচিত; অন্যান্য খ্রীষ্টানদের সাথে অংশীদারিত্ব শেয়ার করা, ঈশ্বরের বাণী শেয়ার করা, যোগাযোগ করা ইত্যাদি।

এই মিশনটি এমন একটি সাম্প্রদায়িক চার্চ সম্প্রদায় থেকে দৃঢ়ভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় যা বাইবেলের ধর্মবাণী বা গসপেলের শব্দগুলিকে সংযুক্ত করে অথবা বাদ দিয়ে দেয় এবং যীশু একাই যে ঈশ্বরের একমাত্র পথ তা অস্বীকার করে।